সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়

সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়, কিভাবে সাদা চুল কালো করা যায় এবং ঘরোয়া প্রতিকার/চিকিৎসা, রেসিপি, তেল (Home Remedies to Turn White Hair Black without chemical dyes in Bengali)

পাকা চুলের সমস্যা শুধু বৃদ্ধদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, আজকাল শিশুদেরও হতে শুরু করেছে। তবে সময়মতো চুলের প্রতি একটু মনোযোগ দিলে এই সমস্যা হওয়া থেকে রক্ষা পাওয়া যায় এবং চুলকেও মজবুত ও ঘন রাখা যায়।

Table of Contents

চুল পাকা হওয়ার প্রধান কারণ (Reason of white Hair)

  • চিন্তা
  • ঠিকমত খাচ্ছে না
  • অত্যধিক চুল পণ্য ব্যবহার
  • নিম্নমানের পণ্য ব্যবহার করা
  • দূষণ
  • অনেক সময় এই সমস্যা জেনেটিকও হয়ে থাকে।
  • হরমোন

সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায় (Home Remedies For White Hairs)

শুধু রাসায়নিক পদার্থের সাহায্যেই চুল কালো করা যায় এমন নয়। আপনি চাইলে নিচে উল্লিখিত প্রাকৃতিক প্রতিকারের সাহায্যে এগুলোকেও কালো করতে পারেন।

কাঁচা পেঁপে

কাঁচা পেঁপে ব্যবহার করে, আপনি কয়েক মাসের মধ্যে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন এবং এটি করার জন্য আপনাকে কেবল কাঁচা পেঁপে পিষে এর পেস্ট তৈরি করতে হবে। এই পেস্টটি আপনার চুলে 20 মিনিটের জন্য লাগিয়ে রাখুন।

পেঁয়াজ

পেঁয়াজের রস ব্যবহার করে আপনি আপনার চুল আবার কালো করতে পারেন, আপনাকে শুধু একটি পেঁয়াজ কুঁচি করে চুলে লাগাতে হবে।

আমলা পেস্ট

আমলা পেস্ট চুল লম্বা করতে এবং সাদা চুল কালো করতে সহায়ক এবং এর পেস্ট লাগালে চুলের অন্যান্য উপকার হয়। এর পেস্ট প্রস্তুত করতে আপনার 4 থেকে 6টি আমলকি লাগবে। এগুলি পিষে আপনাকে একটি পেস্ট তৈরি করতে হবে। এরপর এই পেস্টটি কিছুক্ষণ চুলে লাগিয়ে রাখতে হবে এবং শুকিয়ে গেলেই চুল ধুয়ে ফেলুন।

নারকেল তেল এবং কারি পাতা

নারকেল তেল এবং কারি পাতা চুলের জন্যও উপকারী এবং এই দুটি মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করলে সাদা চুলের সমস্যা দূর হয়।

এই দুটি জিনিসের একটি পেস্ট তৈরি করতে, আপনাকে 1/8 কাপ নারকেল তেল এবং 1/4 কাপ কারি পাতা একসাথে মিশিয়ে গরম করতে হবে। ভালোভাবে গরম হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে ঠাণ্ডা করতে হবে।

তেল ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার পর চুলের গোড়া থেকে শেষ পর্যন্ত লাগান। চুল ধোয়ার আগে প্রতিবার এই প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করুন, অবশ্যই উপকার পাবেন।

বাদাম তেল, লেবুর রস এবং আমলার রস

একটি পাত্রে চার চামচ বাদাম তেল এবং এক চামচ লেবুর রস এবং আমলার রস ভালো করে মিশিয়ে নিন, আপনি অবশ্যই এর ব্যবহারে উপকৃত হবেন।

তিলের তেল এবং গাজরের তেল

৪ টেবিল চামচ তিলের তেল এবং আধা চা চামচ গাজরের বীজের তেল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন এবং যখন এই দুই ধরনের তেল ভালোভাবে মিশে যাবে, তখন ব্যবহার করুন, অবশ্যই উপকার পাবেন।

মেহেদি ও মেথি গুঁড়া

মেহেদি গুঁড়া ও মেথি গুঁড়া মিশিয়ে চুলে লাগালে সাদা চুল কালো হয়ে যায়। যাইহোক, তাদের পেস্ট তৈরি করতে, আপনাকে এই দুটি জিনিসের পাউডারে দই এবং কফির গুঁড়া যোগ করতে হবে এবং তারপরে কিছু জল যোগ করে একটি পাতলা পেস্ট তৈরি করতে হবে, তবেই আপনি এটি ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।

আরো পড়ুন: হাঁপানির ঘরোয়া প্রতিকার | Best Home Remedies For Asthma In Bengali

বাদাম তেল এবং তিলের তেল

বাদামের তেল চুলে অনেক ধরনের পুষ্টি জোগায়, তাই নিয়মিত চুলে এর তেল লাগাতে হবে। আপনি চাইলে এই তেলে তিলের তেল মিশিয়েও লাগাতে পারেন। এই দুটি জিনিসের তেল লাগালে আপনার সাদা চুল কালো হয়ে যাবে।

গরুর দুধের মাখন

আয়ুর্বেদ অনুযায়ী গরুর দুধ থেকে তৈরি মাখন চুলে লাগালে সাদা চুলের সমস্যা দূর হয়। তাই গরুর দুধ কিনে বাড়িতেই মাখন তৈরি করে চুলে লাগান।

যোগব্যায়াম

যোগব্যায়ামের সাহায্যে অকালে চুল পাকা হওয়ার সমস্যা রোধ করা যায় এবং সাদা চুল কালো করা যায়। আপনি নিয়মিত উভয় হাতের নখ একসাথে ঘষুন বা যোগাসন যেমন ভ্রমরী প্রাণায়ম, কপালভাতি এবং ভুজঙ্গাসন করতে থাকুন।

বায়োটিনযুক্ত পণ্য ব্যবহার করুন

বায়োটিন চুল কালো রাখতে এবং সাদা চুলকে কালো করতে সাহায্য করে, তাই আপনার শুধুমাত্র সেই চুলের পণ্যগুলি ব্যবহার করা উচিত যাতে বায়োটিন সমৃদ্ধ উপাদান থাকে। এ ছাড়া ডিমের মতো জিনিসও খেতে হবে।

ভিটামিন বি 12 যুক্ত খাবার খান

ভিটামিন B12 যুক্ত খাবার খাওয়া চুলের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। পনির, অ্যাভোকাডো, কমলালেবু, বরই এবং ক্র্যানবেরির মতো জিনিসগুলিতে ভিটামিন বি 12 পাওয়া যায় এবং এই সমস্ত জিনিসগুলি চুলের বৃদ্ধি এবং চুল কালো রাখতে সহায়ক, তাই আপনার এই জিনিসগুলি আপনার ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

ত্রিফলা ও ভৃঙ্গরাজ

ত্রিফলা ও ভৃঙ্গরাজ চুলের জন্য খুবই ভালো এবং এগুলো ব্যবহারে চুল কালো ও সুন্দর হয় এবং ঝলমলে হতে থাকে। আপনি রাতে একটি প্যানে পানিতে এই দুটি জিনিস মিশিয়ে নিন এবং সকালে চুল ধোয়ার এক ঘণ্টা আগে এই পানি চুলে লাগান এবং শুকিয়ে গেলে চুল ধুয়ে ফেলুন।

গাজরের রস

আপনাকে অবশ্যই আপনার ডায়েটে গাজরের রস অন্তর্ভুক্ত করতে হবে, কারণ এই রস অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সরবরাহ করে যা বিষাক্ত পদার্থগুলিকে দূর করে যা ধূসর চুলের বিকাশ ঘটায়।

আদা

আদার মধ্যে অনেক উপাদান পাওয়া যায় যা সাদা চুল কালো করতে খুবই কার্যকরী। তাই আদা পিষে মধুর সঙ্গে মিশিয়ে চুলে লাগালে সাদা চুলের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

চা পাতা

এটি একটি প্রাকৃতিক রঞ্জক, যা প্রয়োগ করলে চুল কালো হয়ে যায়। কালো চা অকালে পাকা চুল কালো করে। এটি ব্যবহার করাও খুব সহজ।২ চামচ চা পাতা পানিতে ফুটিয়ে নিন। এবার ২ ঘণ্টা ঠান্ডা হতে দিন। পানি ফিল্টার করে একটি স্প্রে বোতলে ভরে নিন। এবার এই স্প্রে বোতল দিয়ে চুলে স্প্রে করুন। এটি কমপক্ষে 1 ঘন্টা রেখে দিন এবং তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এর পর শ্যাম্পু করবেন না।

নারকেল তেল

নারকেল তেলের সাথে লেবুর রস লাগালে চুল চকচকে ও কালো হয়।আপনার চুল অনুযায়ী নারকেল তেল নিন, এতে ৩ টেবিল চামচ লেবুর রস মেশান। এবার এটি দিয়ে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করুন। এর পর চুল আঁচড়ান। এভাবে ১ ঘণ্টা রেখে তারপর মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুবার এটি লাগান, এতে আপনার কালো চকচকে নরম চুল আসবে।

নিম পাতা

নারকেল তেলের সাথে নিম পাতা মিশিয়ে লাগালে চুলে পুষ্টি যোগায়। চুল গজায় এবং ধূসর হওয়ার ক্ষমতা হ্রাস পায়। কিছু নিম পাতা নারকেল তেলে ফুটিয়ে নিন। এবার পাতা আলাদা করে তেল ঠান্ডা হতে দিন। এবার এই তেল দিয়ে আপনার শিকড় ম্যাসাজ করুন। এবং ১ ঘন্টা পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এক মাসের জন্য সপ্তাহে দুইবার এটি করুন।

মেহেন্দি (মেহেদি)

এটি একটি প্রাকৃতিক রঞ্জক, যা প্রাচীনতম কার্যকর প্রতিকার। মেহেদি চুলকে কালো ও নরম করে। এটি একটি খুব ভাল কন্ডিশনারও। মেহেন্দি লাগানোর প্রথা বহু শতাব্দী ধরে চলে আসছে। আজও আমাদের দাদিরা আমাদের মেহেদি লাগানোর পরামর্শ দেন। আগে মানুষ বাড়িতে মেহেদি পিষে চুলে লাগাতেন। এখন বাজারে সহজেই মেহেন্দি পাউডার পাওয়া যায়। মেহেন্দি লাগাতে অবশ্যই সময় লাগে তবে এটি খুব কার্যকর। এছাড়াও আমাদের চুল ও ত্বকের কোন ক্ষতি হয় না।

একটি লোহা বা স্টিলের পাত্র নিন, এবার 1 কাপ মেহেদি, 2 টেবিল চামচ কফি পাউডার, 1 টেবিল চামচ দই, 1 টেবিল চামচ লেবুর রস, 1 টেবিল চামচ আমলা গুঁড়া, 1 টেবিল চামচ শিকাকাই পাউডার, 2-3 চামচ ভিনেগার যোগ করুন। কিছু জল যোগ করে একটি পেস্ট তৈরি করুন। এখন এই মিশ্রণটি সারারাত না হলে অন্তত ২ ঘণ্টা ঢেকে রাখুন। এবার চুলে ভালো করে লাগিয়ে শুকাতে দিন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে পরের দিন শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে একবার এটি লাগান।

আরো পড়ুন: উচ্চ কোলেস্টেরল লক্ষণ ও চিকিৎসা | High Cholesterol Symptoms And Treatment In Bengali

কালো মাটি

আমাদের দেশের মাটি খুবই ভালো ও উর্বর। এই মাটি আমাদের চুলের জন্যও খুব ভালো, এটি চুলকে কালো, নরম ও চকচকে করে। পুকুর বা নদীর পাড়ে কালো মাটি পাবেন। এই মাটি খুবই মসৃণ, এতে কোনো নুড়ি-পাথর নেই। মাটি শুকিয়ে গেলে তাতে সামান্য পানি যোগ করুন। এবার এই মাটি চুল ও গোড়ায় লাগান। 10-15 পরে জল এবং শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে এটি প্রয়োগ করুন। এতে কালো চুল ঘন ও মজবুত হবে।

কালো তিল

তিলের বীজে অনেক খনিজ ও ভিটামিন থাকে। এটি চুল পড়া কমিয়ে কালো করে। (যদি আপনার কাছে কালো তিল না থাকে তবে আপনি সাদা তিলও ব্যবহার করতে পারেন।) তিল কিছুক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এবার একটি মিক্সারে পিষে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি আপনার চুলে ভালোভাবে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। আধা ঘণ্টা পর পানি ও শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন। আপনি অবশ্যই এটি থেকে ফলাফল পাবেন।

মেথি গুঁড়া

নারকেল তেলের সাথে মেথি মিশিয়ে লাগালে চুলের ধূসরতা কমে যায়। ১ টেবিল চামচ নারকেল তেলে আধা চা চামচ মেথি গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এটি আপনার চুলে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। দেড় ঘণ্টা পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি মাসে 5-6 বার ব্যবহার করুন এবং আপনি দ্রুত ফলাফল পাবেন।

আমের পাতা

আমের পাতা পিষে পেস্ট তৈরি করুন। এটি আপনার চুলে লাগান এবং 15-20 মিনিট পর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল গজাবে এবং কালোও হবে। এছাড়া কিছু আমের পাতা ও আমের খোসা পিষে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি নারকেল তেলের সাথে মিশিয়ে বাক্সে ভরে দিন। এই বাক্সটি কয়েক দিন সূর্যের আলোতে রাখুন। এবার চুলে সবসময় এই তেল ব্যবহার করুন। এটি চুল পড়া কমায় এবং চুল কালো করে। এই দুটি আমের চিকিৎসাই অত্যন্ত উপকারী বলে প্রমাণিত হয়েছে।

FAQs

ধূসর চুলের কারণ কী?

কম বয়সে চুল পাকা হওয়ার সমস্যা সাধারণ হয়ে উঠছে। এগুলো মূলত পুষ্টির অভাবের কারণে হয়ে থাকে। অনেক সময় কিছু মানুষ জেনেটিক সমস্যায়ও ভোগেন। এগুলি প্রধানত প্রোটিন এবং হিমোগ্লোবিনের ঘাটতির কারণে ঘটে। যাদের রক্তস্বল্পতা এবং থাইরয়েড আছে তাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়।

কোন ভিটামিনের অভাবে চুল পাকা হয়?

শরীরে ভিটামিন B12 এর অভাবের কারণে অল্প বয়সে চুল পাকা হয়ে যায়। আপনার খাদ্যতালিকায় ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবার বেশি করে খান, এতে এই সমস্যা অনেকাংশে কমে যাবে।

ভিটামিন বি কি পাওয়া যায়?

মুরগি, মাছ, সবুজ তাজা মটর, বাদাম, ব্রকলি ইত্যাদি।

কোন ভিটামিনের অভাবে চুল পড়ে?

যদি আপনার চুল খুব বেশি পড়ে, তার মানে আপনার শরীরে ভিটামিন সি-এর অভাব রয়েছে। এর ফলে চুলের শুষ্কতা বেড়ে যায় এবং চুল আবার ভাঙতে শুরু করে। ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেতে হবে।

সাদা চুল কালো করার ওষুধ কি?

জেনে নিন প্রাকৃতিকভাবে চুল কালো করার উপায়, রাসায়নিক পদার্থ আপনার চুলে অন্যান্য সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। চুল কালো করতে ভ্রিংরাজ তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন খুব ভালো।


iNFO বাংলা দেখার জন্য ধন্যবাদ

By Tanmoy

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *