সেলিব্রিটি পুষ্টিবিদ রুজুতা দিওয়েকারসেলিব্রিটি পুষ্টিবিদ রুজুতা দিওয়েকারের সাথে হজমের গোপনীয়তা আনলক করুন

সেলিব্রিটি পুষ্টিবিদ রুজুতা দিওয়েকার: অফিসে একই সিটে বসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাজ করা বা বাড়িতে বসে মোবাইল বা ওয়েব সিরিজ দেখে দীর্ঘ সময় কাটানো সাধারণ ব্যাপার। এমন পরিস্থিতিতে আমাদের জীবন বেশ স্থবির হয়ে পড়ে। যার কারণে লোকেরা প্রায়শই অ্যাসিডিটি, গ্যাস, চিনির লোভ, বদহজম, ওজন বৃদ্ধি ইত্যাদি সমস্যায় ভুগতে শুরু করে সেলিব্রিটি পুষ্টিবিদ রুজুতা দিওয়েকরের কাছ থেকে জেনে নিন কীভাবে আপনি খুব সহজে আপনার হজমশক্তি উন্নত করতে পারেন। রুজুতার মতে, আপনি আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় গুড়, ঘি এবং কলা অন্তর্ভুক্ত করে আপনার পরিপাকতন্ত্রের উন্নতি করতে পারেন।

গুড় খুব শক্তিশালী

রুজুতা দিওয়েকর লাইফস্টাইল এবং ডায়েট সম্পর্কিত এমন সহজ সমাধান দিয়েছেন, যেগুলো সবার জন্য গ্রহণ করা খুবই সহজ। এর মধ্যে একটি হল গুড়। রুজুতার মতে, সর্বদা এক চামচ গুড় এবং ঘি দিয়ে আপনার দুপুরের খাবার শেষ করুন। এই মিষ্টতা শুধু মিষ্টির প্রতি আপনার আকাঙ্ক্ষাই কমাবে না, আপনার পরিপাকতন্ত্রকেও শক্তিশালী করবে। এটি আপনার শরীরে ভালো চর্বি জোগাবে। এছাড়াও, আপনি এই উভয় খাদ্য আইটেম থেকে যথেষ্ট পুষ্টি পাবেন।

আরো পড়ুন: চোখের নিচের কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

কলা শক্তির পাশাপাশি পুষ্টিও দেবে

প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় কলা অন্তর্ভুক্ত করে অনেক স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে দূরে থাকতে পারেন। এটি আপনাকে শক্তি দেবে এবং ফোলা কমাতেও সহায়ক হবে। রুজুতার মতে, প্রতিদিন সকালে বা বিকেল ৪টা থেকে ৬টার মধ্যে একটি কলা খাওয়া ভালো। কলায় রয়েছে ফাইবার এবং ইলেক্ট্রোলাইট যা গ্যাস এবং ফোলা নিয়ন্ত্রণ করে।

দই এবং কিসমিস বিস্ময়কর কাজ করবে

আপনি যদি প্রায়ই গ্যাস, মাথাব্যথা এবং অ্যাসিডিটির সমস্যায় অস্থির থাকেন, তবে দই এবং কিশমিশের মিশ্রণ আপনার জন্য বিস্ময়কর কাজ করতে পারে। এক বাটি দইয়ে তিন থেকে চারটি কালো কিশমিশ মিশিয়ে নিন, প্রিবায়োটিক এবং প্রোবায়োটিক বৈশিষ্ট্যের এই মিশ্রণ আপনার হজমশক্তিকে উন্নত করবে। এটি শরীরকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি 12 সরবরাহ করবে, যার অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে।

সর্বদা সক্রিয় থাকুন

একটি সঠিক পাচনতন্ত্রের জন্য, আপনার সক্রিয় থাকা গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট হাঁটুন, এতে আপনার হজমশক্তি ভালো হবে। আপনি যত বেশি সক্রিয় থাকবেন, আপনার VAT সংক্রান্ত সমস্যা তত কম হবে। এর সাথে, দুপুরের খাবারের পরে 15 থেকে 20 মিনিটের একটি ছোট ঘুমও আপনার জন্য খুব সহায়ক হতে পারে। এটি আপনাকে তাত্ক্ষণিক শক্তি দেবে না, হজমশক্তিও উন্নত করবে। ক্যাফেইন গ্রহণ কমিয়ে দিন। অতিরিক্ত চা বা কফি পান করা থেকে বিরত থাকুন, বিশেষ করে বিকেল ৪টার পর। দিনে দুই বা তিন কাপের বেশি চা বা কফি পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য এবং ডায়রিয়া হতে পারে।


iNFO বাংলা দেখার জন্য ধন্যবাদ

By Tanmoy

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *