Sickle Cell DiseaseSickle Cell Disease

Sickle Cell Disease: আপনি হয়তো সিকেল সেল ডিজিজের নাম শুনেননি, কিন্তু এটি শিশুদের জন্য খুবই বিপজ্জনক, তাই এই রোগ সম্পর্কে জানা এবং সঠিক সময়ে পরীক্ষা করা এবং চিকিৎসা করানো জরুরি।

সিকল সেল রোগ কি (What Is Sickle Cell Disease)

সিকেল সেল ডিজিজ হল অস্বাভাবিক হিমোগ্লোবিন দ্বারা সৃষ্ট একটি জেনেটিক ব্যাধি, যা লাল রক্ত ​​কণিকাকে শক্ত এবং কাস্তে আকৃতির করে তোলে। যদিও এ ধরনের সমস্যা যেকোনো বয়সের মানুষেরই হতে পারে, কিন্তু শিশুদের মধ্যে এর কুপ্রভাব রোধ করতে হলে এর প্রাথমিক সনাক্তকরণ, চিকিৎসা এবং দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থাপনা খুবই জরুরি হয়ে পড়ে।

শরীরে রক্ত ​​প্রবাহে বাধাগ্রস্ত হওয়ার ফলে স্ট্রোক, চোখের সমস্যা, সংক্রমণ এবং ব্যথার এপিসোড সহ গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে যাকে ব্যথা সংকট বলে।

সিকেল সেল ডিজিজ একটি আজীবন অসুখ। একটি বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট বর্তমানে সিকেল সেল রোগের একমাত্র নিরাময়। জিন থেরাপিকে আরেকটি সম্ভাব্য নিরাময় হিসাবেও অন্বেষণ করা হচ্ছে, তবে অন্যান্য কার্যকর চিকিত্সা রয়েছে যা লক্ষণগুলি হ্রাস করতে এবং জীবনকে দীর্ঘায়িত করতে পারে। আপনার যদি সিকেল সেল রোগ থাকে, তাহলে আপনার স্বাস্থ্যসেবা দল আপনার উপসর্গ কমাতে এবং অবস্থা পরিচালনা করার জন্য একটি চিকিত্সা পরিকল্পনায় আপনার সাথে কাজ করবে।

এই অবস্থাটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে 100,000 এরও বেশি মানুষকে এবং বিশ্বব্যাপী 20 মিলিয়ন মানুষকে প্রভাবিত করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, বেশিরভাগ লোক যাদের সিকেল সেল রোগ আছে তারা আফ্রিকান বংশধর বা নিজেদেরকে কালো বলে পরিচয় দেয়।

সিকেল সেল রোগের লক্ষণ (Sickle cell disease symptoms)

আরও গুরুতর সিকেল সেল রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা প্রায়শই নবজাতক হিসাবে লক্ষণগুলি অনুভব করতে শুরু করে। রোগটি শরীরের অনেক অংশকে প্রভাবিত করতে পারে এবং সময়ের সাথে সাথে লক্ষণগুলি আরও খারাপ হতে পারে।

সিকেল সেল রোগের লক্ষণ এবং জটিলতাগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • অ্যানিমিয়া: পর্যাপ্ত লোহিত রক্তকণিকা না থাকার ফলে রক্তাল্পতা হতে পারে, যা ক্লান্তি এবং শ্বাসকষ্ট দ্বারা চিহ্নিত।
  • রক্তনালীর অবরোধের কারণে জটিলতা: সিকলড লোহিত কণিকা রক্তনালীতে আটকে যেতে পারে, যার ফলে অস্থায়ী কিন্তু গুরুতর ব্যথার শিখাকে ভাসো-অক্লুসিভ এপিসোড (VOEs) বলা হয়। এগুলি সাধারণত অঙ্গ, বুকে এবং পিঠে ঘটে। অবরুদ্ধ রক্তনালীগুলি চোখ, কিডনি, প্লীহা এবং পায়ে সমস্যা হতে পারে। তার একিউট চেস্ট সিনড্রোম নামক জরুরী অবস্থা এবং হাড়ের টিস্যুর শেষ মৃত্যু ঘটাতে পারে। মস্তিষ্কে একটি স্ট্রোক ট্রিগার করতে পারে।
  • রক্তের জমাট বাঁধা: মিশেপেন লোহিত রক্তকণিকা রক্তের জমাট বাঁধতে পারে, যা স্বাস্থ্যের ঝুঁকি তৈরি করতে পারে।
  • দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা: সিকেল সেল রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে তাদের দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা হতে পারে, যে কারণ অস্পষ্ট থাকে। এই ধরনের ব্যথা চলমান এবং দীর্ঘস্থায়ী হয়।
  • অন্যান্য অঙ্গের ক্ষতি: পর্যাপ্ত লোহিত রক্তকণিকা ছাড়া, শরীরে পর্যাপ্ত অক্সিজেন নাও থাকতে পারে, যার ফলে হৃৎপিণ্ড, ফুসফুস এবং কিডনিতে বিশেষ চাপ পড়ে। ক্ষতিগ্রস্থ লোহিত রক্তকণিকাও লিভারে জড়ো হতে পারে এবং সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
  • গর্ভাবস্থা: সিকেল সেল রোগ গর্ভাবস্থায় কিছু চ্যালেঞ্জ তৈরি করে। রোগটি অস্থায়ীভাবে আরও তীব্র হতে পারে, আরও ঘন ঘন ব্যথা সহ। এটি অকাল জন্ম এবং কম ওজনের জন্মের সম্ভাবনাও বাড়িয়ে দিতে পারে। সিকেল সেল রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের গর্ভাবস্থায় তাদের স্বাস্থ্য এবং তাদের শিশুর সুরক্ষার জন্য অতিরিক্ত মনোযোগ প্রয়োজন।

আরো পড়ুন: IVF পদ্ধতি: কেন করা হয়, ভারতে আইভিএফ চিকিৎসার খরচ

‘প্রথম দিকে সনাক্তকরণ গুরুত্বপূর্ণ’

গুরুগ্রামের ফোর্টিস মেমোরিয়াল রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পেডিয়াট্রিক হেমাটোলজিস্ট ডক্টর বিকাশ দুয়া বলেছেন যে আমরা যদি সিকেল সেল রোগটি তাড়াতাড়ি শনাক্ত করি তবে এটি আরও ভাল উপায়ে পরিচালনা করা যেতে পারে। নবজাতকের স্ক্রীনিং প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রাথমিক সনাক্তকরণ। অনেক উন্নতি হয়েছে, কারণ যাতে সময়মতো চিকিৎসা করা যায় এবং রোগটিকে আরও অগ্রসর হওয়া থেকে রোধ করা যায়।

ভারতে সিকেল সেল অ্যানিমিয়া চিকিত্সা (sickle cell anemia treatment in india)

একবার নির্ণয় করা হলে, সিকেল সেল রোগের সাথে সম্পর্কিত জটিলতাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য প্রাথমিক হস্তক্ষেপের কৌশলগুলির উপর ফোকাস করা হয়। হাইড্রক্সিউরিয়া হল এক ধরনের ওষুধ যা ভ্রূণের হিমোগ্লোবিনের উৎপাদন বাড়ায়। এটি ঘন ঘন ব্যথা এবং হাসপাতালে ভর্তির প্রয়োজন কমাতে পারে। নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং টিকাদানও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যাতে শিশুদের মধ্যে এই ধরনের সমস্যা এবং সংক্রমণ রোধ করা যায়।

এই রোগ নির্ণয় কিভাবে?

ট্রান্সক্র্যানিয়াল ডপলার আল্ট্রাসাউন্ড সিকেল সেল রোগ সনাক্ত করার একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। এর সাহায্যে স্ট্রোকের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা শিশুদের রোগ শনাক্ত করা যায়। এমন পরিস্থিতিতে সঠিক সময়ে রক্ত ​​সঞ্চালন করে ঝুঁকি কমানো যায়। হেমাটোলজিস্ট, শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ এবং বিশেষায়িত নার্সরা একসঙ্গে কাজ করলে শিশুদের বিশেষ চাহিদা ও স্বাস্থ্যের চাহিদা মেটানো সম্ভব।

দীর্ঘমেয়াদী ব্যবস্থাপনা

আমরা যদি সিকেল সেল রোগের দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব কমাতে চাই, তবে প্রতিটি শিশুর সাথে আলাদা পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। এর জন্য নিয়মিত ফলোআপ, পুষ্টি সংক্রান্ত পরামর্শ এবং মানসিক সহায়তা প্রয়োজন। শিশু এবং পিতামাতা উভয়েরই এই রোগ সম্পর্কে সঠিক তথ্য থাকা প্রয়োজন। কিছু শিশুদের জন্য, দীর্ঘস্থায়ী রক্ত ​​​​সঞ্চালন একটি দীর্ঘমেয়াদী ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনার অংশ, যা স্ট্রোক এবং অঙ্গের ক্ষতির মতো জটিলতা প্রতিরোধ করতে পারে। এছাড়াও, অস্থি মজ্জা প্রতিস্থাপনেরও আশ্রয় নেওয়া হয়, তবে এটি কিছুটা জটিল প্রক্রিয়া। বর্তমান সফরে, অনেক উন্নত চিকিৎসা গবেষণা প্রযুক্তি শিশুদের জীবনযাত্রার উন্নতিতে সাহায্য করেছে।


iNFO বাংলা দেখার জন্য ধন্যবাদ

By Tanmoy

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *