উচ্চ কোলেস্টেরল লক্ষণ ও চিকিৎসা | High Cholesterol Symptoms And Treatment In Bengaliউচ্চ কোলেস্টেরল লক্ষণ ও চিকিৎসা | High Cholesterol Symptoms And Treatment In Bengali

উচ্চ কোলেস্টেরল লক্ষণ, কারণ, ও চিকিৎসা (High Cholesterol Causes, Symptoms And Treatment In Bengali)

আজকাল আমাদের লাইফস্টাইল এতটাই বদলে গেছে যে আমরা আমাদের খাদ্যাভ্যাসের দিকে মনোযোগ দিই না, আর শরীরে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেড়ে যায়। কোলেস্টেরল একটি খুব সাধারণ সমস্যা এবং এটি আমাদের দেশের অনেক মানুষকে প্রভাবিত করছে।

কোলেস্টেরল কি? (What is Cholesterol)

কোলেস্টেরল হল এক ধরনের চর্বি যা আমাদের শরীরের রক্তে থাকে। এর সঠিক ব্যবহার না হলে তা রোগের রূপ নেয়। কোলেস্টেরল অন্যান্য রোগকেও আমন্ত্রণ জানায়।

কোলেস্টেরল বৃদ্ধির কারণ (High Cholesterol Reasons)

  • জেনেটিক
  • সিগারেট এবং অ্যালকোহল অত্যধিক ব্যবহার
  • বয়স
  • হাঁটা বা ব্যায়ামের মতো শারীরিক কার্যকলাপের অভাব
  • চর্বিযুক্ত খাবারের অত্যধিক ব্যবহার
  • ফাস্ট ফুডের অত্যধিক ব্যবহার

আরো পড়ুন: স্বাস্থ্যকর চোখের জন্য 10টি খাবার অবশ্যই খাদ্য তালিকায় থাকা উচিত 

উচ্চ কোলেস্টেরল লক্ষণ (High Cholesterol Lakshan / Symtoms)

যদিও এর কারণে আপনি আপনার শরীরে বিশেষ কোনো উপসর্গ লক্ষ্য করবেন না, কিন্তু এর কারণে অন্যান্য রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। কোলেস্টেরল বৃদ্ধির কারণে আপনার

  • উচ্চ্ রক্তচাপ
  • হৃদপিন্ডে হঠাৎ আক্রমণ
  • ডায়াবেটিস

ঝুঁকি বাড়ে। চিকিত্সকরা পরামর্শ দেন যে 20 বছর বয়সের পরে প্রতি পাঁচ বছর পর আমাদের কোলেস্টেরল পরীক্ষা করা উচিত। এর জন্য আপনার রক্ত ​​পরীক্ষা করাতে হবে।

কোলেস্টেরলের প্রকার (Type of Cholesterol)

ক্রমিক সংখ্যাকোলেস্টেরলের ধরনবর্ণনা
1.কম ঘনত্বের লিপোপ্রোটিন(LDL)একে খারাপ (খারাপ) কোলেস্টেরলও বলা হয়। এটি ধমনীতে ক্লট তৈরি করে, তাদের কম নমনীয় করে তোলে। জমাট বাঁধার কারণে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বেড়ে যায়। এর ফলে ধমনী রোগও হতে পারে।
2.উচ্চ ঘনত্বের লিপোপ্রোটিন(HDL)একে ভালো কোলেস্টেরলও বলা হয়। এটি ধমনী থেকে কম ঘনত্বের কোলেস্টেরল (LDL) দূর করে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উচ্চ কোলেস্টেরল ধমনীতে যাওয়ার পর কম ঘনত্বের কোলেস্টেরলকে যকৃতে পাঠায়, যেখান থেকে তা লিভারের মাধ্যমে শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। যদি একটি যুক্তিসঙ্গত পরিমাণ উচ্চ কোলেস্টেরল শরীরে প্রবেশ করে, তবে এটি হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক থেকেও রক্ষা করে।

উচ্চ কোলেস্টেরল দ্বারা সৃষ্ট অন্যান্য রোগ –

  • উচ্চ্ রক্তচাপ
  • সুগার
  • কিডনি সম্পর্কিত সমস্যা
  • লিভার সমস্যা
  • হার্ট সম্পর্কিত সমস্যা

কোলেস্টেরল কমানোর খাদ্য তালিকা

আমাদের শরীরকে ফিট ও সুস্থ রাখতে হলে এর যত্ন নিতে হবে, কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে এবং বাড়তে দেবেন না। আমরা ঘরে বসেই ওষুধ ছাড়াই এটি কমাতে পারি।

ধনে –

একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ধনে অনেকাংশে কোলেস্টেরল কমাতে সহায়ক এবং এটি সুগারকেও নিয়ন্ত্রণ করে।

  • এক কাপ পানিতে ২ চামচ ধনে গুঁড়ো মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন।
  • এখন এটি ফিল্টার করুন এবং দিনে 1-2 বার পান করুন।
  • এ ছাড়া ধনে আধা কাপ পানিতে সারারাত ভিজিয়ে রাখুন এবং সকালে খালি পেটে পান করুন। আপনি কিছু দিনের মধ্যে পার্থক্য লক্ষ্য করবেন।

পেঁয়াজ –

লাল পেঁয়াজ কোলেস্টেরল কমাতে সহায়ক। একটি গবেষণা অনুসারে, এটি খারাপ কোলেস্টেরল দূর করে এবং ভাল কোলেস্টেরল বাড়ায়।

  • এক চামচ পেঁয়াজের রসে মধু যোগ করুন এবং প্রতিদিন পান করুন।
  • এ ছাড়া একটি পেঁয়াজ ভালো করে কেটে এক কাপ বাটারমিল্কে মিশিয়ে তাতে লবণ ও কালো মরিচ মিশিয়ে প্রতিদিন পান করুন।
  • আপনার খাদ্যতালিকায় পেঁয়াজ, রসুন এবং আদা অন্তর্ভুক্ত করুন।

আরো পড়ুন: Near Death Experience In Bengali | নিকট-মৃত্যুর অভিজ্ঞতার 5টি বিশ্বাসযোগ্য গল্প

আমলা –

আমলা কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণেও সহায়ক, যা আমাদের ঘরে সহজেই পাওয়া যায়।

  • এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চামচ আমলা গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন।
  • প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এটি পান করুন। পার্থক্যটা খুব তাড়াতাড়ি বুঝতে পারবেন।

কমলার শরবত –

কমলালেবুতে রয়েছে ভিটামিন সি যা খারাপ কোলেস্টেরল দূর করতে খুবই সহায়ক। প্রতিদিন 2-3 গ্লাস কমলার রস পান করলে আপনার শরীরের কোলেস্টেরল খুব দ্রুত নিয়ন্ত্রণে থাকবে। আপনার ডায়েটে কমলা অন্তর্ভুক্ত করুন।

নারকেল তেল –

নারকেল তেল শরীরের চর্বি কমায় এবং কোলেস্টেরল বাড়ায় না। আপনার খাদ্যতালিকায় জৈব নারকেল তেল অন্তর্ভুক্ত করুন, প্রতিদিন 1-2 চা চামচ খান।

ওটস –

ওটস আমাদের শরীরের জন্য সব দিক দিয়েই ভালো, এটি শরীরের কোলেস্টেরল কমায় এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে।

বাদাম-

আপনার খাদ্যতালিকায় শুকনো ফল অন্তর্ভুক্ত করুন, এতে বেশি ফাইবার রয়েছে যা শরীরের জন্য উপকারী। আপনার খাদ্যতালিকায় 1 মুঠো মিশ্রিত ড্রাই ফ্রুটস রাখুন, তবে খেয়াল রাখবেন এর বেশি যেন না হয়। এতে রয়েছে প্রাকৃতিক তেল যা শরীরের অনেক চাহিদা পূরণ করে।

ব্যায়াম –

প্রতিদিন সকালে ব্যায়াম করুন, দিনে ৩০ মিনিট হাঁটার অভ্যাস করুন।

বেগুন –

আপনার খাদ্যতালিকায় বেগুন শাক অন্তর্ভুক্ত করুন, এটি সহজলভ্য এবং সুস্বাদুও। এতে কোলেস্টেরলও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

মটরশুটি –

বিভিন্ন ধরনের শীতের খাবার পাওয়া যায়, সেগুলোকে আপনার খাদ্যতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন, মটরশুটি এটি পুষ্টিকর এবং কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সহায়ক।

এগুলি এমন কিছু পদ্ধতি যা আপনি ঘরে বসে সহজেই ব্যবহার করতে পারেন এবং আপনার কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন, এর জন্য আপনাকে ব্যয়বহুল ওষুধ খাওয়ার দরকার নেই। কিন্তু সমস্যা বাড়লে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন, সময়ে সময়ে কোলেস্টেরল পরীক্ষা করতে থাকুন যাতে বুঝতে পারেন এটি নিয়ন্ত্রণে আছে কি না। আপনার যদি অন্য কোন সমাধান থাকে তবে আমাদের সাথে শেয়ার করুন।


পরামর্শ – আপনার রোগ এবং শরীরের ক্ষমতা অনুযায়ী এই ঘরোয়া প্রতিকারগুলি ব্যবহার করুন। আপনি যদি এটি ব্যবহার করে কোনো ধরনের অ্যালার্জি বা কোনো সমস্যার সম্মুখীন হন, তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট infobangla.co.in এর জন্য দায়ী থাকবে না।

iNFO বাংলা দেখার জন্য ধন্যবাদ

By Tanmoy

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *